অপু এখন ‘লুডু মাস্টার’

অপু এখন ‘লুডু মাস্টার’

নন্দনপুর গ্রামের মোল্লা পরিবারে বাবা-মায়ের একমাত্র সন্তান সুজন মোল্লা। সুদে ব্যবসায়ী বাবা শাহ আলম মোল্লার ছেলে সুজন পড়াশোনা করে না, খায়-দায়, ঘুরে-বেড়ায়। এ নিয়ে বাবার কোনো মাথা ব্যথা নেই। সকাল থেকে ঘুমাতে যাওয়া পর্যন্ত সুজনের একটাই কাজ, লুডু খেলা! এ কারণে সবাই তাকে ‘লুডু মাস্টার’ নামে ডাকে।

এই লুডু মাস্টার তারই গ্রামের সুমাইয়াকে খুব পছন্দ করে। মা-বাবাহীন কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী সুমাইয়া বড় ভাই-ভাবীর কাছে মানুষ হয়েছে। তার ভাই আবার সবসময় সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে জল্লাদ-টাইপ চলাফেরা করে। তাই সে গ্রামের মধ্যে ‘জল্লাদ আকবর’ নামে পরিচিত৷

সুজন যে সুমাইয়াকে পছন্দ করে,পথে-ঘাটে দাঁড় করিয়ে কথা বলে,প্রেমের প্রস্তাব দেয়- এতে সুমাইয়া বিরক্ত হয়। এ কথা একসময় জল্লাদ আকবর জানতে পারে। সে তার সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে সুজনকে গ্রাম-ছাড়া করার উদ্দেশ্যে বের হয়। সুজন এ খবর জানতে পেরে ভয়ে পাশের গ্রামে পালিয়ে যায়।

কিন্তু ওই গ্রামে লুডুখেলায় খুব একটা সুবিধা করতে পারে না। ফলে আবার নিজ গ্রামে ফিরে এসে জল্লাদ আকবরকে জানায়, সে আর তার বোনের পিছু নেবে না। এরপর হঠাৎ একদিন সুমাইয়ার সঙ্গে তার দেখা হয়। এরপর কী হয়? তা দেখা যাবে নাটক ‘লুডু মাস্টার’-এ।

এ নাটকের গল্প ভাবনা, চিত্রনাট্য মাহফুজ ইসলামের। পরিচালনাও করেছেন তিনি। এখানে লুডু মাস্টারের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন রাশেদ মামুন অপু। সম্প্রতি পুবাইলে নাটকটির শুটিং সম্পূর্ণ হয়েছে । নাটকের অন্যান্য চরিত্রে আরও অভিনয় করেছেন মুকিত জাকারিয়া, শাকিলা আকতার, কেয়া মনি, হারুন রশিদ, শেখ স্বপ্না, বাদল, আনোয়ার হোসেন, ইমরান হাসু ও প্যারিস প্রমুখ।

রাশেদ মামুন অপু

পরিচালক মাহফুজ ইসলাম বলেন, ‘আমি অনেক দিন ধরেই এ নাটকটি করার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম। খুব কঠিন একটি কাজ ছিল। সকলের সহযোগিতা আর ভালোবাসায় ভালো কাজ উপহার দিতে যাচ্ছি দর্শকদের।’ তিনি আরও জানান, নৈনামিক প্রডাকশনস প্রেজেন্ট গালিব হাসানের প্রযোজনায় নাটকটি শিগগিরই এসএটিভিতে প্রচারিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here