ইরেশের তোলা প্রিয় ১০ ছবি

ইরেশের তোলা প্রিয় ১০ ছবি

ইরেশ যাকের ২০০৭ সালে ছুটি কাটাতে একবার নেপালে গেছেন । মনটা ভালো না, একাই কাটছিল সময়। এই সময়ই একজনের কাছ থেকে ক্যামেরা ধার করে প্রথম ছবি ওঠান। নিজের তোলা সেই ছবি দেখে ভালো লাগে। সেদিনই সিদ্ধান্ত নেন, নিয়মিত ছবি তুলবেন।

ইরেশ যাকের

দেশে ফিরে ক্যামেরা হাতে তুলে নেন। সেই থেকে ১৪ বছর ধরে চলছে ছবি তোলা।

আজ বিশ্ব আলোকচিত্র দিবসে তাঁর ওঠানো ১০টি পছন্দের ছবি প্রকাশ করা হলো।

ছবির মধ্যে থেকে ১০টি ছবি বাছাই করাকে খুবই কঠিন বলে মত দিয়ে এক দিন সময় নিলেন। তারপর বেছে বের করলেন ছবিগুলো। ছবিগুলো তিনি সাজিয়েছেন ‘একটি মেঘ যাত্রা, আলোর পরে আঁধার, পরে আলো মুগ্ধতা আকুলতা, আশা হতাশা জন্ম নেয়, আলো–আঁধার আসে যায়, নিজের নিয়মে’ এই ক্রম অনুসারে।

বাবা আলী যাকের ফটোগ্রাফি করতেন। এ জন্য অনেকেই মনে করেন, বাবার কাছ থেকে ফটোগ্রাফি শিখেছেন ইরেশ যাকের। অথচ সত্য হচ্ছে, আদিতে ফটোগ্রাফির কোনো আগ্রহই এই অভিনেতার ছিল না।

নেপালে ঘুরতে গিয়ে প্রথম ফটোগ্রাফির প্রেমে পড়েন এই অভিনেতা।

প্রথম একটি সনি ক্যামেরা কিনে ফটোগ্রাফি শুরু করেন।

আর এখন তো শখটা অনেকটা নেশার মতো হয়ে গেছে।

পরিবারের সহযোগিতার কারণেই সৃজনশীল এই কাজে সম্পৃক্ত হতে পেরেছেন, মনে করেন ইরেশ। শৈশব থেকেই বাবার ক্যামেরা দেখে অভ্যস্ত। ফটোগ্রাফি নিয়ে বাবার ছিল গভীর জ্ঞান। ছবি তোলার বিষয়ে পরে বাবার কাছ থেকে পরামর্শ নিতেন।

দেশের বাইরে গেলে ইরেশের দরকারি সামগ্রীর মধ্যে সবার আগে থাকে ক্যামেরা।

শুটিংয়েও তাঁর সঙ্গে থাকে ক্যামেরা। সময় পেলেই ছবি ওঠান।

ফেসবুকে আগে নিয়মিত ছবি পোস্ট করলেও এখন খুবই কম ছবি পোস্ট করেন। এই সম্পর্কে ইরেশ বলেন, ‘দেখা যায়, এমন কিছু ছবি বেশি লাইক পায়, যেগুলো হয়তো সেরা কাজ নয়। কিন্তু অনেকেই ভালো লাগা থেকে এই একই ধরনের ছবি তুলতে পরামর্শ দেন। সেই স্রোতে আমি গা ভাসাতে চাই না। আমি আমার মতো করে ছবি তুলতে চাই।

সময় কাটানোর জন্যও তাঁর বড় সঙ্গী ক্যামেরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here