একজন পরিপূর্ণ শিল্পী সুবর্ণা মুস্তাফা (ভিডিও)

একজন পরিপূর্ণ শিল্পী সুবর্ণা মুস্তাফা (ভিডিও)

হুমায়ূন আহমেদের লেখা কালজয়ী ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকে প্রেমিক মামুনের বিয়ের খবর বাকের ভাইকে জানিয়ে মুনা বলেছিল, ‘আমার এখন মাঝে মাঝে মনে হয়, আমার বোধহয় আপনাকেই ভালোবাসা উচিত ছিল। আমরা সব সময় ভুল মানুষকে ভালোবাসি।’ মুনার এই সংলাপ সে সময় দর্শক-হৃদয়ে দাগ কেটেছিল। আজ সেই ‘মুনা’ নন্দিত অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফার জন্মদিন।

১৯৫৯ সালের ২ ডিসেম্বর ঢাকায় জন্মগ্রহণ করেন সুবর্ণা মুস্তাফা। তাঁর পৈত্রিক নিবাস ঝালকাঠি জেলার নলছিটি উপজেলার দপদপিয়া ইউনিয়নে। সুবর্ণার বাবা গোলাম মুস্তাফা ছিলেন অভিনেতা ও আবৃত্তিশিল্পী। মা পাকিস্তান রেডিওতে প্রযোজনার দায়িত্বে ছিলেন। মাত্র পাঁচ-ছয় বছর বয়সে বেতার নাটকে কাজ করেন সুবর্ণা।

সুবর্ণা প্রথম টেলিভিশন নাটকে অভিনয় করেন নবম শ্রেণিতে পড়াকালে। ১৯৭১ সালের আগ পর্যন্ত তিনি শিশুশিল্পী হিসেবে নিয়মিত টেলিভিশনে কাজ করেছেন। তাঁর অভিনীত সিনেমাগুলো হচ্ছে  ‘ঘুড্ডি’, ‘লাল সবুজের পালা’, ‘নতুন বউ’, ‘নয়নের আলো’, ‘সুরুজ মিঞ্চা’, ‘শঙ্খনীল কারাগার’, ‘রাক্ষস’,‘ কমান্ডার’, ‘অপহরণ’, ‘স্ত্রী’, ‘দূরত্ব’ ইত্যাদি।

১৯৯০ সালে বিটিভিতে প্রচারিত জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে নির্মিত ‘কোথাও কেউ নেই’ নাটকে অভিনয় করেন সুবর্ণা মুস্তাফা। এতে ‘মুনা’ চরিত্রে তাঁর অভিনয় সব মহলের ব্যাপক প্রশংসা কুড়ায়। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাঁকে। হুমায়ূন আহমেদের নাটকে একের পর এক অভিনয় করতে থাকেন তিনি। ‘আজ রবিবার’ নাটকে তাঁর দুর্দান্ত অভিনয় নজর কাড়ে সবার। বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারে স্বীকৃতিস্বরূপ পেয়েছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সম্মাননা একুশে পদক।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here