কানে এশিয়ার হ্যাট্টিকটা কি হতে যাচ্ছে !

0
55

কান চলচ্চিত্র উৎসবে এশিয়ার জয়ের হ্যাটট্রিক হয়ে যেতে পারে! ২০১৮ সালে জাপানের হিরোকাজু কোরিদার ‘শপলিফটারস’ এবং ২০১৯ সালে দক্ষিণ কোরিয়ার বঙ জুন হো পরিচালিত ‘প্যারাসাইট’ স্বর্ণ পাম জিতেছে। কানের ৭৪তম আসরের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে জাপানের রিয়ুসুকে হামাগুচির ‘ড্রাইভ মাই কার’কে ঘিরে এশিয়ার আরেকবার স্বর্ণ পাম জয় নিয়ে আশা তৈরি হয়েছে। ছবিটি এখন বোদ্ধাদের প্রশংসা কুড়াচ্ছে।
গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে গত ১১ জুলাই ‘ড্রাইভ মাই কার’ ছবির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হয়। গতকাল সকালে সাল দ্যু সোসানতিয়েমে আবার এটি দেখানো হয়। এরপর স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় সংবাদ সম্মেলনে হাজির হন পরিচালক রিয়ুসুকে হামাগুচি ও তার ছবির অভিনয়শিল্পীরা। তিনি বলেন, গাড়ির ভেতর দুটি চরিত্র দীর্ঘ কথোপকথনের মাধ্যমে ঘনিষ্ঠ হয়ে যায়, এটি আমার কাছে আকর্ষণীয় লেগেছে।

‘ড্রাইভ মাই কার’ ছবির কলাকুশলীরা।

হারুকি মুরাকামির ছোটগল্প অবলম্বনে রোড-মুভি ঢঙে তৈরি হয়েছে ‘ড্রাইভ মাই কার’। এর গল্প মঞ্চ অভিনেতা ও নির্দেশক ইউসুকে কাফুকুকে ঘিরে। স্ত্রীর মৃত্যুর দুই

বছর পর একটি নাট্যোৎসবে নির্দেশনা দেওয়ার প্রস্তাব পায় সে। হিরোশিমায় যেতে স্বল্পভাষী মিসাকিকে গাড়ির ড্রাইভারের দায়িত্ব দেয় কাফুকু। তারা পথ চলতে চলতে সময় কাটাতে থাকে। ধীরে ধীরে স্ত্রীর রেখে যাওয়া রহস্যের মুখোমুখি হয় কাফুকু, যা তাকে কুঁড়ে কুঁড়ে খাচ্ছে।
জাপান ছাড়াও এবারের কানের মূল প্রতিযোগিতায় এশিয়া থেকে আছে থাইল্যান্ডের ‘মেমোরিয়া’। এটি পরিচালনা করেছেন অ্যাপিচ্যাটপঙ বিরাসেতাকুল। একযুগ আগে ‘আঙ্কেল বুনমি হু ক্যান রিকল হিজ পাস্ট লিভস’ ছবির মাধ্যমে থাইল্যান্ডকে স্বর্ণ পাম এনে দিয়েছিলেন তিনি। ফলে তার নতুন কাজ নিয়ে আশাবাদী অনেকে।
আঁ সার্তে রিগা বিভাগে এবার এশিয়ার প্রতিনিধিত্ব করছে বাংলাদেশের আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদের ‘রেহানা মরিয়ম নূর’ এবং চীনের না জিয়াজো পরিচালিত প্রথম ছবি ‘গাই ওয়ার’। এর মধ্যে বাংলাদেশের ছবিটির ভূয়সী প্রশংসা করেছেন বোদ্ধারা। আশা করা হচ্ছে, আগামী ১৬ জুলাই পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে এর প্রতিফলন পাওয়া যাবে।
প্রতিযোগিতা বিভাগের বাইরে আছে চীনের ওয়েন শিপেই পরিচালিত ‘আর ইউ লোনসাম টুনাইট’ এবং দক্ষিণ কোরিয়ার হান জে-রিমের ‘ইমার্জেন্সি ডিক্লারেশন’ ও হঙ সাঙ সু পরিচালিত ‘ইন ফ্রন্ট অব ইউর ফেস’।
উৎসবের সপ্তম দিনে গতকাল গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে দেখানো হয় মূল প্রতিযোগিতা বিভাগ থেকে ইতালির স্বর্ণ পাম জয়ী ন্যানি মোরেত্তির ‘থ্রি ফ্লোরস’, ফরাসি নারী নির্মাতা মিয়া হানসেন-লাভের ‘বার্গম্যান আইল্যান্ড’, রাশিয়ার কিরিল সেরেব্রেনিকোভের “পেত্রোভ’স ফ্লু” এবং মার্কিন পরিচালক ওয়েস অ্যান্ডারসনের ‘দ্য ফ্রেঞ্চ ডিসপাচ’।


সিনেমা ও জলবায়ু বিভাগে সোমবার প্রদর্শিত হয়েছে ফরাসি তারকা লুই গ্যারেল পরিচালিত ও অভিনীত পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘দ্য ক্রুসেড’। একই বিভাগে ছিলো দুটি প্রামাণ্যচিত্র। এগুলো হলো ফরাসি পরিচালক সিরিল দিও পরিচালিত ‘অ্যানিমেল’ এবং ভারতীয় নির্মাতা রাহুল জৈনের ‘ইনভিজিবল ডেমনস’।
প্রতিযোগিতা বিভাগের বাইরে গতকাল কান কর্তৃপক্ষ দেখিয়েছে ফ্রান্সের সেদ্রিক হিমেনেজ পরিচালিত ‘বাক নর্ড’। কান প্রিমিয়ারে ছিলো ১৯৯১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ‘জেএফকে’র নতুন সংস্করণ ‘জেএফকে রিভিজিটেড: থ্রু দ্য লুকিং গ্লাস’। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি হত্যার তদন্ত নিয়ে ছবিটি পরিচালনা করেছেন অলিভার স্টোন। স্পেশাল প্রদর্শনীতে সোমবার প্রদর্শিত হয়েছে ফ্রান্সের ম্যাক্সিম রয় পরিচালিত প্রথম ছবি ‘দ্য হিরোইকস’।
আঁ সার্তে রিগা
উৎসবের সপ্তম দিন আঁ সার্তে রিগায় ছিলো অস্ট্রিয়ান নির্মাতা সি.বি. ই পরিচালিত প্রথম ছবি ‘মানিবয়েজ’ এবং ফরাসি নারী নির্মাতা ইওয়ান মাঙ্কার ‘মাই ব্রাদারস অ্যান্ড আই’।
সিনেমা ডি লা প্লাজ
কানের মাচি সৈকতে গতকাল রাত ৯টা ৩০ মিনিটে ছিলো জাস্টিন লিন পরিচালিত ‘ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস নাইন’ ছবির ইউরোপিয়ান প্রিমিয়ার। ভূমধ্যসাগরের তীরে সবশ্রেণির দর্শক-শ্রোতা, উৎসবে অংশগ্রহণকারী এবং পর্যটকদের জন্য এই আয়োজন ছিলো উন্মুক্ত।
‘ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস’ ফ্র্যাঞ্চাইজির এই দশম কিস্তিতে রয়েছে হলিউড তারকা ভিন ডিজেল ও তার বাহিনীর দুরন্ত কিছু স্টান্ট এবং উদ্দাম গাড়ি চালানোর দৃশ্য।
ধ্রুপদি ছবির বিভাগ কান ক্ল্যাসিকসে গতকাল উৎসব আয়োজকরা দেখিয়েছে ফরাসি পরিচালক ম্যাক্স ওফুলের ‘লেটার ফ্রম অ্যান আননৌন ওম্যান’ (১৯৪৮) এবং হাঙ্গেরির নারী নির্মাতা মার্তা মেসারসের ‘ডায়েরি ফর মাই চিলড্রেন’ (১৯৮৩)।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here