জন্মদিনে সিনেমার শুটিংয়ে ব্যস্ত নিপুণ

ঢাকাই সিনেমার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী নিপুণ আক্তার। আজ তার জন্মদিন। এই অভিনেত্রীর ৩৯তম জন্মদিনে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই শুভেচ্ছা ও ভালোবাসা প্রকাশ করছেন। অনেকেই ট্রিট চেয়েছেন নিপুণের কাছে। অনেকে আবার আড্ডার আবদারও করছেন। তবে নায়িকা নিজের জীবনের বিশেষ এ দিনটিতেও ব্যস্ত আছেন ‘সুজন মাঝি’ সিনেমার শুটিং নিয়ে।

ফেসবুকে যখন সহশিল্পী, ভক্ত-অনুরাগীরা জন্মদিনের শুভেচ্ছাবার্তায় ভাসিয়ে দিচ্ছেন, তখন চিত্রনায়িকা নিপুণ আক্তার উলুখোলার গ্রামীণ জনপদে সহশিল্পী ফেরদৌসের সঙ্গে শুটিংয়ে ব্যস্ত। আজ ঢাকাই ছবির এই নায়িকার জন্মদিন। কিন্তু দিনটি উদ্‌যাপন করা হচ্ছে অন্যভাবে। দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর ‘সুজন মাঝি’ ছবির শুটিংয়ে সময় পার করছেন তিনি।

নিপুণ জানালেন শুটিংয়ের কারণে সময় হয়নি, তাই এখনো জন্মদিনের কেকও কাটা হয়নি।  বলেন, ‘শুটিং থেকে গতকাল রাত ১২টার পর বাসায় ফিরেছি। আবার সকালে উঠেই শুটিংয়ে চলে এসেছি। কেক কাটার সময়ই পাইনি। আশা করছি, আজ রাত নয়টার মধ্যেই শুটিং শেষ হবে। বাসায় ফিরে কেক কাটব। তবে আমি প্রত্যাশা করি বেশি বেশি সিনেমা তৈরি হোক, আমার মতো সব শিল্পীই এভাবে সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত থাকুক।’

নিপুণ এবারের জন্মদিনে সবচেয়ে বেশি সারপ্রাইজড হয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র থেকে তাঁর মেয়ে তানিশা হোসেনের আগমনে। বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র থেকে মেয়ের আসার কথা ১০ জুন। হঠাৎ সকালে মেয়ের ফোন। বলে কী, মা দ্রুত এয়ারপোর্টে গাড়ি নিয়ে চলে আসো। শুনে আমি তো অবাক। কারণ, আমি নিজেই ১০ তারিখের টিকিট কেটে দিয়ে ছিলাম। কিন্তু ও আমাকে সারপ্রাইজ দিতে নিজে নিজে টিকিট পরিবর্তন করে এই কাজটি করেছে। জন্মদিনে আমার বড় সারপ্রাইজ আমার মেয়ে।’

১৯৮৪ সালের ৯ জুন নিপুণের জন্ম হয়েছিল কুমিল্লার জালগাঁওয়ে। দেশ থেকে উচ্চমাধ্যমিক পাস করার পর তিনি ১৯৯৯ সালে চলে যান রাশিয়ায়। মস্কোতে নিপুন ২০০৪ পর্যন্ত পড়ালেখা করেন। এরপর পাড়ি জমান যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে পড়াশোনা শেষ করে ২০০৬ সালে ফিরে আসেন দেশে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here