জাপানি অভিনেতার করোনায় মৃত্যু

জাপানি অভিনেতার করোনায় মৃত্যু

‘কিল বিল’, ‘দ্য স্ট্রিট ফাইটার’সহ শতাধিক চলচ্চিত্রের অভিনেতা সনি চিবা মারা গেছেন । জাপানি এই অভিনেতার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। বিনোদন দুনিয়ার আরেক তারকাকে করোনা কেড়ে নিল ।

বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় টোকিওর কাছাকাছি এক হাসপাতালে শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মার্শাল আর্টে দক্ষ এই অভিনেতা নিজ দেশে শিনিচি চিবা নামে অধিক পরিচিত ছিলেন। শুক্রবার তাঁর ব্যবস্থাপক এক বিবৃতির মাধ্যমে তাঁর মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন।  

চলতি মাসের ৮ তারিখ থেকে কোভিড-১৯-এর চিকিৎসা চলছিল তাঁর। এই তারকা করোনাভাইরাসের টিকা নেননি। তিনি তিন সন্তান জুরি মানাসে, মাকেনিয়ু আরাতা ও গর্ডন মায়েদাকে রেখে গেছেন। তাঁরা প্রত্যেকেই অভিনেতা-অভিনেত্রী।

ষাটের দশকে জাপানে চিবার অভিনয়জগতে যাত্রা। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান টোয়ির সঙ্গে নিয়মিত কাজ করতেন তিনি। বিভিন্ন চলচ্চিত্রে সামুরাই, যোদ্ধা, গোয়েন্দা পুলিশ ও ভিলেন চরিত্রে অভিনয় করে পরিচিতি পান তিনি।

১৯৭৪ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দ্য স্ট্রিট ফাইটার’ যাঁরা দেখেছেন, তাঁদের চোখে হয়তো এখনো ভাসছে পর্দায় তাঁর মারধরের দৃশ্য। বিশেষ করে তাঁর মাথার খুলি ভেঙে ফেলার দৃশ্যের কথা। শিগেহিরো ওজাওয়ার ওই ছবিতে ভাড়াটে হিসেবে কাজ করা সনি চিবা পিটিয়ে একের পর এক মানুষের হাড্ডিগুড্ডি গুঁড়িয়ে দেওয়ার পাশাপাশি থেঁতলে দিতেন মুখ! ‘দ্য স্ট্রিট ফাইটার’ ছবিতে তাকুমা সুরুগি চরিত্র দিয়ে রুপালি পর্দার জগতে নিজের জাত চেনান তিনি।

জাপানি অভিনেতার করোনায় মৃত্যু

চিত্রপরিচালক কুয়েন্টিন টারান্টিনোর বিখ্যাত ছবি ‘কিল বিল’ সিরিজ এবং ‘দ্য ফাস্ট অ্যান্ড দ্য ফিউরিয়াস: টোকিও ড্রিফ্ট’–এ তাঁকে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে দেখা গেছে। ‘কিল বিল: ভলিউম-১’ তিনি ছিলেন তলোয়ার প্রস্তুতকারক সোর্ডস্মিথ হাত্তোরি হাঞ্জো। তাঁর অভিনীত অন্যান্য জনপ্রিয় সিনেমার মধ্যে রয়েছে ‘সুশি গার্ল’ ও ‘আয়রন ইগল-থ্রি’।

এই অভিনেতা ছিলেন একসময় আরেক প্রয়াত অভিনেতা ব্রুস লির প্রতিপক্ষ। ব্রুস লির মার্শাল আর্টে ছিল ক্ষিপ্রতা। পর্দায় তিনি মৌমাছির মতো উড়তে পারতেন। কিন্তু পর্দার সনি চিবার মার্শাল আর্টে ছিল রাগ, প্রতিপক্ষকে ধ্বংস করে দেওয়া, মেরে হাড্ডিগুড্ডি ভেঙে দেওয়ার মতো বিষয়।

১৯৩৯ সালের ২২ জানুয়ারি জাপানের ফুকুওকায় জন্ম নেওয়া চিবা পড়াশোনা করেন নিপ্পন স্পোর্ট সায়েন্স ইউনিভার্সিটিতে। বিভিন্ন ধরনের মার্শাল আর্টসের প্রশিক্ষণ নেন তিনি। এর মধ্যে কারাতেতে অর্জন করেন একটি ফোর্থ-ডিগ্রি ব্ল্যাক বেল্ট। মার্শাল আর্টসে দক্ষ তরুণ প্রজন্মের অভিনেতাদের গড়ে তুলতে ১৯৮০ সালে তিনি ‘জাপান অ্যাকশন ক্লাব’ প্রতিষ্ঠা করেন।

সূত্র: বিবিসি, সিএনএন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here