টেলিভিশন শিল্পটা বুঝে ব্যবসাটা করেন

0
380

শিমুল সরকার

Director Simul Sharkar

২০ বছরেরও বেশি সময় পার করলো বাংলাদেশের স্যাটেলাইট চ্যানেল যুগ। একুশে টেলিভিশন এসেছিল নতুন ভাবনা, নতুন স্বপ্ন, নতুন প্রেজেন্টেশন নিয়ে। এরপর যারাই এসেছে তারাই কাট কপি পেস্টের খেলা খেলেছে মাত্র। একটি টেলিভিশন চ্যানেলেরও কোনো গবেষণা সেল নেই যেটা কিনা সবার আগে প্রয়োজন, বিশেষ করে ক্রিয়েটিভ কাজের ক্ষেত্রে। পরিণাম এই ২০ বছরেও একটি চ্যানেলের সাহস হয়নি তাদের চ্যানেলটি পে চ্যানেলে রুপান্তরিত করার। শুধুই বিজ্ঞাপন নির্ভর ব্যবসা তাদের। তারা ভাল করেই জানেন পে চ্যানেল করলে কেউ তাদেরটা টাকা দিয়ে দেখবে না। ফ্রি দিচ্ছে বলেই অন্তত চায়ের দোকানের টিভি চ্যানেলে বাংলা সিনেমা আর খবরটা দেখে মানুষ চা খাওয়ার অবসরে।কেন টাকা দিয়ে দেখবে দর্শক? কি আছে আমাদের চ্যানেলগুলোতে? বেশিরভাগ চ্যানেলই চলে মার্কেটিং বিভাগের কথা মত। দর্শকের নয়, বিজ্ঞাপনদাতাদের খুশি করাই তাদের একমাত্র লক্ষ্য থাকে। অথচ চাইলে চ্যানেল শুরু করার এক বছরের মধ্যেই কাজ টা করা সম্ভব ছিল যদি গবেষণা ও প্ল্যানিং ঠিক থাকতো এবং মানসম্পন্ন কনটেন্ট তৈরি করতে পারতেন তারা। আমরা নির্লজ্জের মতো জি বাংলার মিরাক্কেলের হুবহু নকল করতে গিয়ে আসল জিনিসটাকে রেপ করে ছেড়ে দিয়ে নিজেরাই হাসি। আমাদের নিজেদের যোগ্যতা নেই ভাল প্ল্যানিং এবং কনটেন্ট তৈরির, কিন্তু উল্টা আমরা যায় ভারতের চ্যানেল বন্ধ করো আন্দোলনে গলাবাজি করতে। ওগুলো বন্ধ না করলে যে আমদেরটা দেখতে বাধ্য করা যাচ্ছে না, এটাই তাদের ভীতি। গোয়াল ভর্তি জনগন পুষে যে জঘন্য আউটপুট আমরা দিচ্ছি সেটা তো মাগ্নাই গেলানো যায় না দর্শকদের, আবার পে চ্যানেল???? ও গুড়ে বালি। নন প্রফেশনাল রাস্তায় হাঁটতে গিয়ে আজ এই চ্যানেলগুলো স্টাফদের বেতনও দিতে পারে না ঠিক মতো। বাইরের লগ্নিকারকদের কোটি কোটি টাকা পাওনা দিতে পারে না। এদের কাছে আপনি নতুন একটা প্ল্যান নিয়ে যাবেন? তারা প্রথমেই বলবে স্পন্সর নিয়ে আসেন। বলবে বাজেট যদি হয় ৫ লাখ তাহলে সেটা ৫০ হাজারে কিভাবে করা যায় সেই প্ল্যান করতে এবং প্রথম দিন থেকেই সেখানে লাভ না আসলে বিশ্ববিখ্যাত প্ল্যানেও তারা রাজি হবে না। অথচ একটি চ্যানেল প্রচার শুরুর এক বছরের মধ্যেই দর্শক পছন্দের শীর্ষ স্থানে নেয়া সম্ভব যদি তার গবেষণা লব্ধ কনটেন্ট অন্য সবার থেকে আলাদা এবং আকর্ষণীয় করা যায়। সেটা না করে গরুর দালালদের হাতে তুলে দিয়ে প্রথম দিনে কতটা ব্যবসা হলো সেই ভাবনার আলু পটল ব্যবসায়ীদের হাতে আজ এই ইন্ডাস্ট্রি জিম্মি। পরিণাম তারাও ভাল নেই, তাদের দেখতে দর্শকেরও টাইম নেই। দর্শকের হাতে আছে রিমোর্ট,আছে পৃথিবীর সব বিনোদন এক ক্লিকে দেখে ফেলার প্রযুক্তি। এখনও সময় আছে নীতি বদলান মার্কেটিং বিভাগ সরান (কারন বিজ্ঞাপন আপনার কাছে আসবে, বিজ্ঞাপনের কাছে আপনার যাবার দরকার নেই যদি আপনার প্রডাক্ট ভাল হয়) গবেষণা সেলকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেন বাম হাতে উপরি ইনকামের ধান্দা ছাড়েন আত্মীয়তা ভুলে যান এবং শিল্পটা বুঝে ব্যবসাটা করেন আমি চ্যালেঞ্জ নিয়ে বলছি এক মিনিট বিজ্ঞাপন প্রচার না করেই মাত্র এক ঘন্টার একটা প্রগ্রাম দিয়ে আপনার বর্তমান মাসিক ইনকামের চাইতে বেশি লাভ করা সম্ভব এবং সেটা দর্শক হুমড়ি খেয়েই দেখবে।

শিমুল সরকার

নাট্যকার, নির্মাতা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here