ট্যাক্সিচালক থেকে খ্যাতিমান অভিনেতা

ট্যাক্সিচালক থেকে খ্যাতিমান অভিনেতা
ট্যাক্সিচালক থেকে খ্যাতিমান অভিনেতা

টালিউড পেরিয়ে বলিউডেও যার দখল  তিনি হলেন কলকাতার তুখোড় অভিনেতা রাজেশ শর্মা। । কলকাতার অসংখ্য সিনেমায় পার্শ্ব-ভিলেনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এরই মধ্যে হিন্দি সিনেমায় দুর্দান্ত অভিনয় করে বলিউডে থিতু হয়েছেন।

 ‘পরিণীতা’ ‘নো ওয়ান কিলড জেসিকা’ ‘এমএস ধোনি: দ্য আনটোল্ড স্টোরি’ সিনেমায় তার  অভিনয় দর্শকদের হৃদয়ে নাড়া দিয়েছে।

এই অভিনেতার জীবন অনেকটা ভারতের সুপারস্টার রজনীকান্তের মতো। অভিনয় জীবন শুরুর আগে রজনীকান্ত ছিলেন বাস কন্ডাক্টর। আর রাজ শর্মা ছিলেন ট্যাক্সি ড্রাইভার। তাই বলে শিক্ষাগত যোগ্যতা কম নয় রাজেশের।

বাংলা ও হিন্দি দুটোতেই সমান দক্ষ রাজেশ শর্মার জন্ম ১৯৭১ সালে পাঞ্জাবের লুধিয়ানায়। স্কুল পাস করে দিল্লির ন্যাশনাল স্কুল অব ড্রামা থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন তিনি। এর পর কলকাতায় একটি নাটক সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত হন।

অভিনয়ে এমন সনদ থাকার পরও কাজ পাচ্ছিলেন না তিনি। জীবিকার তাগিদে মুম্বাই ও কলকাতার অলিগলি ঘুরেছেন।

কোথাও কোনো কাজ মেলিনি।  পরিচিত না থাকার জন্য  অভিনয়ে দারুণ দক্ষতা ও যোগ্যতা নিয়েও কোনো সুযোগ পাচ্ছিলেন না সিনেমায়। অবশেষে জীবিকার তাগিদে মুম্বাইয়ের রাস্তায় ট্যাক্সি চালানো শুরু করেন।

১৯৯৬ সালে বলিউডে ‘মাচিস’ নামের একটি  সিনেমায় অভিনয় করার  সুযোগ হয় তার। সিনেমাটি ভারতের জাতীয় পুরস্কার পেলেও রাজেশের ভাগ্যের চাকা থমকেই ছিল। পরবর্তী প্রায় ৯ বছর বলিউডে কোনো কাজ পাননি তিনি।

মুম্বাইয়ে পরিচালক, প্রযোজকদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরে হতাশ হয়ে কলকাতায় ফিরে আসেন। থিয়েটারে অভিনয় শুরু করেন। সেই সূত্রে পরিচয় হয়ে যায় টালিউড অভিনেত্রী অপর্ণা সেনের সঙ্গে। অপর্ণা সেন তাকে ‘পারমিতার একদিন’ সিনেমায় কাজ পাইয়ে দেন। ২০০০ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত সেই ছবি দিয়ে শুরু হয় টালিউডে রাজেশের পথচলা। এর পর আর থেমে থাকেনি তার ভাগ্যচাকা। শুধু সামনের দিকে এগিয়েই গেছে। চালাতে হয়নি ট্যাক্সি।

টালিউডের সুপারহিট সিনেমা ‘প্রতিবাদ’-এ টিনু গুণ্ডার ভূমিকায় অভিনয় করে জনপ্রিয়তা তুঙ্গে উঠে রাজেশের। এর পর ‘দাদা ঠাকুর’, ‘বাদশা দ্য কিং’, ‘সোনার সংসার’, ‘সাথী’, ‘দেশ’, ‘চ্যাম্পিয়ন’-এর মতো ব্যবসাসফল সিনেমাগুলোতেও অভিনয় করেছেন।

টালিউড মাতানোর মধ্যেই খবর পৌঁছে যায় বলিউডে। ২০০৫ সালে বলিউডে ফের ডাক পড়ে রাজেশ শর্মার। বিদ্যা বালনের ‘পরিণীতা’ সিনেমা দিয়ে আবার বলিউডযাত্রা শুরু করেন। এর পর অনেক সিনেমায় দেখা গেছে তাকে। এদের মধ্যে ২০১১ ‘নো ওয়ান কিলড জেসিকা’ সিনেমায় তার অনবদ্য অভিনয় সিনেপ্রেমীদের নজর কাড়ে। রীতিমতো সাড়া ফেলে দেন রাজেশ।

পরবর্তী সময় ‘চিল্লার পার্টি’, ‘দ্য ডার্টি পিকচার’, ‘শুদ্ধ দেশি রোম্যান্স’, ‘তানু ওয়েডস মানু রিটার্নস’, ‘বজরাঙ্গি ভাইজান’, ‘এমএস ধোনি দ্য আনটোল্ড স্টোরি’, ‘বেগম জান’, ‘হিন্দি মিডিয়াম’, ‘টয়লেট এক প্রেম কথা’, ‘রেস থ্রি’, ‘ভেদা চেন্নাই’, ‘সুপার ৩০’, ‘মারদানি ২’, ‘বাটোলা হাউজ’, ‘ড্রিমগার্ল ও ‘লক্ষ্মী’র মতো দর্শকপ্রিয় সফল সিনেমাগুলোতে অভিনয় করেছেন রাজেশ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here