নিজেকে টম ক্রুজের সাথে তুলনা করলেন জলিল

ঈদে মুক্তি জন্য ইতোমধ্যে সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে বাংলাদেশ-ইরানের যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এ ছবিটি। সম্প্রতি মুক্তি উপলক্ষে হল ট্রেলার প্রদর্শনের আয়োজন করেন অনন্ত। প্রায় ৯ বছর পর মুক্তি পেতে যাচ্ছে অনন্ত জলিল অভিনীত ও প্রযোজিত ছবি  ‘দিন দ্য ডে’। বাংলাদেশ, তুরস্ক, আফগিস্তান, ইরান এই চার দেশ মিলিয়ে ‘দিন দ্য ডে’ সিনেমায় উঠে আসবে সেইসব লোমহর্ষক প্রেক্ষাপট। ছবিতে অনন্ত ছাড়াও আছেন তার স্ত্রী ও চিত্রনায়িকা বর্ষা। ছবিটি পরিচালনা করেছেন ইরানি নির্মাতা মুর্তজা অতাশ জমজম।

অনন্ত বলেছেন, ‘সিনেমা করা আমার ব্যবসা না শখ। এই শখ থেকেই এসেই মাধ্যমটাকে ভালোবেসে ছবি নির্মাণ করি। বাংলাদেশের প্রথম ডিজিটাল ফর্মেটে সিনেমা নির্মাণের প্রথম উদ্যেক্তা হলাম আমি। সেই ধারাবাহিকতায় এবার মুক্তি পাচ্ছে আমার দিন দ্য ডে। ছবিটি হলিউডের টম ক্রুজের ছবির চেয়ে কোনো অংশে কম না। টম ক্রুজের ছবিতে যেমন সাউন্ড পাওয়া যায় দিন দ্য ডে ছবিতেও তেমন সাউন্ড ও ক্যামেরার কাজ পাওয়া যাবে। বাংলাদেশের শিল্পী হিসেবে ভাগ্যবান মনে করি যে এতো বড় আয়োজনের ছবি করতে পেরেছি। বাকিটা ঈদে মুক্তির সময় পুরো ছবি দেখতে দর্শক বুঝবে। ছবিটির বাজেট প্রায় ১০০ কোটি টাকা (১০ মিলিয়ন ডলার)। ইরান এই বাজেট নির্ধারণ করার পর আমি প্রস্তাব দেই বাংলাদেশে শুটিংয়ে খরচ হবে সেটা আমি দিতে পারবো। যেহেতু আমাদের হল কম তাই বেশি বিনিয়োগ করতে পারবো না। ইরানের ৪০ দিন শুটিংয়ের পরিকল্পনা থাকলে ৫৭ দিন শুটিং করতে হয়েছে। সেখানে বাজটে বেড়েছে। মানুষ যে কাজটা করে ভালোবেসে করে। একইভাবে ভালোবেসে ছবি বানাতে আসে। কিন্তু এসে যদি দেখে ঝগড়া লেগে আছে তাহলে কেন ছবি বানাবে? এফডিসিতে গেলে একজন আরেকজনের পিছনে লেগে থাকে, দোষারোপ করে; এসবের কারণে কেউ ঝামেলায় জড়াতে চায় না বলে ছবিতে বিনিয়োগ করতে চায় না। চলচ্চিত্র সর্বোচ্চ গণমাধ্যম। এখানে কেন অন্যরা বিনিয়োগ করবে না! অবশ্যই করবে। কিন্তু বিনিয়োগ করতে গিয়ে ঝামেলায় পড়ুক এটা কেউ চায় না। এফডিসিতে ঝগড়াঝাঁটি বন্ধ করা গেলে অনেক প্রযোজক নতুন করে ছবি বানাতে আগ্রহী হবে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here