নেটফ্লিক্সে এবার কোরিয়ান ঝড়

নেটফ্লিক্সে এবার কোরিয়ান ঝড়

দারুণ হইচই ফেলে দেওয়া কোরিয়ান সিরিজ ‘স্কুইড গেম’কে হটিয়ে স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম নেটফ্লিক্সের ইতিহাসে এবার শীর্ষস্থান দখল করেছে—‘হেলবাউন্ড’। ‘হেলবাউন্ড’ মূলত সাইকোলজিক্যাল ড্রামা । আবার সিরিজপ্রেমীদের কাছে ‘মাই নেম’ও এখন ট্রেন্ডে আছে।

ট্রেলার আর পোস্টার দেখে মনে হবে হাই বাজেটের কোনও অ্যাকশন থ্রিলার বুঝি। এই ভেবে যদি ‘হেলবাউন্ড’ দেখতে বসেন, তবে মনটা মোড় নেবে অন্যদিকে।

মনে করুন, আপনি দৈববাণীতে আপনার মৃত্যুর ফরমান আগেই পেয়ে গেলেন এবং জানতে পারলেন আপনাকে নরকের শাস্তি ভোগ করতে হবে। কেমন লাগবে? ধরা যাক আপনি হয়তো কোনও বড়সড় পাপ করেছিলেনই, যার কারণে তিনটা দানব এসে মর্মান্তিকভাবে আপনার জীবন নিয়ে যাচ্ছে। এটাই হেলবাউন্ড-এর প্রথম সিজনের মূল কাহিনি। শেষে টুইস্ট আসে তখনই যখন দেখা যায় এক সদ্যজাত শিশুও পেলো একই ফরমান!

এদিকে আবার নিউ ট্রুথ নামক এক সংগঠন বলছে মানুষকে সঠিক পথে আনতে ঈশ্বর এগুলো করছেন। আবার অ্যারোহেড নামের একটি উগ্রবাদী সংগঠন বলছে, মানুষকে দেওয়া ঈশ্বরের শাস্তি। কিন্তু ওই দানবেরা কি আদৌ পরলৌকিক কিছু? পাপের পর অপরাধবোধ ও নতুন করে বাঁচার পথে বাধা হয়ে দাঁড়ানো ধর্মান্ধতা—এসব দেখে আবার সিরিজটাকে মনে হবে খানিকটা রূপকের মতোই। তবে আসল ঘটনা কোন দিকে গড়ায় সেটা জানতে অপেক্ষা করতে হবে দ্বিতীয় সিজন পর্যন্ত।

প্রথম দুই পর্ব খানিকটা ধীরগতিতে এগোলেও এটা আসলে ‘ট্রেইন টু বুসান’ পরিচালক ইয়োন সাং-হোর গল্প বোনারই কৌশল। আবহসংগীত ও সিনেমাটোগ্রাফির কারণে সিরিজজুড়েই আছে থমথমে পরিবেশ। যেন পৃথিবীজুড়েই আছে চাপা আতঙ্ক। না জানি কে আবার মৃত্যুর ফরমান পেয়ে বসে।

আবার ধর্মান্ধতা মানুষকে কী করে ভয়াবহ করে তুলতে পারে সেটার একটা রূপক উপস্থাপনাটাও চিন্তার খোরাক জোগাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here