পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবরের জন্মদিন আজ(ভিডিও)

পরিচালক মনতাজুর রহমান আকবরের জন্মদিন আজ(ভিডিও)

বাংলাদেশী চলচ্চিত্র পরিচালক, চিত্রনাট্যকার, প্রযোজক, সমাজকর্মী ও একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা মনতাজুর রহমান আকবরের জন্মদিন আজ   ।

তিনি মারপিট ও প্রণয়ধর্মী চলচ্চিত্র পরিচালনার জন্য পরিচিত। তিনি মান্নার সঙ্গে ২২টি, ডিপজলের সাথে ২১টি এবং আব্দুল্লাহ জহির বাবুর সঙ্গে ৪৬টি চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। এছাড়াও তার চলচ্চিত্রের মাধ্যমে ডিপজল, সাদিকা পারভিন পপি, কেয়া, রিয়া সেন, শাকিবা, সংগীতা, অন্তরা বিশ্বাস, আকাশ খান এবং পুষ্পিতা পপির মতো অভিনেতাদের চলচ্চিত্রে আবির্ভাব ঘটে। তিনি প্যানারোমা মুভিজ, নয়ন-আপন প্রডাকশন, স্টারপ্লাস, প্রচেষ্টা, ড্রামা সার্কেল, চলতে চলতে এবং ফার্নিচার ভিলেজের প্রতিষ্ঠিতা।

মনতাজুর রহমান আকবরের গ্রামের বাড়ি জয়পুরহাট জেলার আক্কেলপুর। আকবর ১৯৭৮ সালে ১৩ মার্চ মরিয়ম রহমানকে বিয়ে করেন, তার তিন ছেলে, বড় ছেলে অপু মনোয়ার একাত্তর টিভির নিউজরুম সম্পাদক। আকবর পড়াশুনার পাশাপাশি বাবার ব্যবসার জন্য বিভিন্ন এলকায় যেতেন। বাবার ব্যবসায় দেখার পাশাপাশি কলেজের থিয়েটারের সাথে যুক্ত ছিলেন। আকবর কলেজে পড়াকালীন থিয়েটার পরিচালনা করতেন সারা বছর ধরে। তিনি স্থানীয় বেশ কিছু ক্লাব তন্মধ্যে আক্কেলপুর আদর্শ ক্লাব, আক্কেলপুর এমআর কলেজ ক্লাব, চান্তারা ক্লাবের সদস্য ছিলেন। তিনি বেশ কিছু থিয়েটারের অন্যতম সংগঠক হিসাবে কাজ করেন। ১৯৭৭ সালে রাজশাহী এডুকেশন বোর্ড এর অধীনে জয়পুরহাট ডিগ্রী কলেজ থেকে বি.এ.পাস করেন।

তিনি ছাত্র জীবনে আক্কেলপুর থানা সংসদে ছাত্র ইউনিয়নে যোগ দেন। সেখান থেকে যুদ্ধে যাওয়ার সাহস পান। মনতাজুর রহমান আকবর যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে পানিখনি শিলিগুড়িতে প্রশিক্ষণ নেন। তিনি সেক্টর কমান্ডার কাজী নূরুজ্জামান-এর অধীনে ১৯৭১ সালে ৭ নম্বর সেক্টরে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন।

আকবর সহকারী পরিচালক হিসাবে তার কর্মজীবন শুরু করেন। তিনি ১৯৮০ সালে পরিচালক আজিজুর রহমানের সহকারী হিসেবে ছুটির ঘণ্টা চলচ্চিত্রে প্রথম কাজ করেন।

আকবর ১৯৯১ সালে পরিচালক হিসাবে অভিষেক ঘটে । আকবর পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র টাকার পাহাড়, যা ১৯৯৩ সালে মুক্তি পেয়েছিল। পরের বছর জনপ্রিয় জুটি ইলিয়াস কাঞ্চন ও দিতিকে নিয়ে নির্মাণ করেন চাকর, যা  ১৯৯২ সালের টপ চার্টে উঠে আসে। এরপর সেই সময়ের নাম করা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান আলমগির পিকচারস থেকে ডাক পরে তার, এই প্রডাকশনের ব্যানারে নির্মাণ করেন অভিনেতা মান্নাকে নিয়ে তার প্রথম চলচ্চিত্র প্রেম দিওয়ানা (১৯৯৩)। ছবিটি ব্যবসাসফল হলে এই জুটিকে নিয়ে নির্মাণ করেন ডিসকো ডান্সার (১৯৯৪), বশিরা (১৯৯৫), বাবার আদেশ (১৯৯৫) ও খলনায়ক (১৯৯৬), ১৯৯৬ সালে মৌসুমিকে নিয়ে নির্মাণ করেন লেডি একশান চলচ্চিত্র ‘বাঘিনি কন্যা’, মান্নাকে নিয়ে খলনায়ক, ওমরসানি ও আমিন খানকে নিয়ে শয়তান মানুষ। ১৯৯৭ সালে আমার মা, অন্ধ ভালোবাসা ও ঈদুল ফিতরে মুক্তি পায় তার পরিচালিত কুলি।  এই ছায়াছবির মাধ্যমে অভিষেক হয় চিত্রনায়িকা পপির,  পরবর্তীতে আকবর পপিকে নিয়ে নির্মাণ করেন কে আমার বাবা (১৯৯৯), ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী (২০০১), ও লেডি অ্যাকশন ছায়াছবি বস্তির রানী সুরিয়া (২০০৪)। ১৯৯৮ সালে মান্না অভিনীত শান্ত কেন মাস্তান  ব্যবসাসফল হয়। একই বছর তিনি বাংলাদেশ ও ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মাণ করেন মনের মত মন। এতে অভিনয় করেন বাংলাদেশের আমিন খান এবং ভারতের মোহিনী ও ভিক্টর ব্যানার্জি।

তার উল্লেখযোগ্য সিনেমার মধ্যে রয়েছে   ‘তবুও ভালোবাসি, আগে যদি জানতাম তুই হবি পর, মাই নেম ইজ সিমি, বোঝেনা সে বোঝেনা, দুলাভাই জিন্দাবাদ ইত্যাদি’ ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here