পলান সরকারের জন্মশতবার্ষিকী আজ (ভিডিও)

পলান সরকারের ১০১তম জন্মদিন আজ (ভিডিও)

পলান সরকার। কেউ তাঁকে বলেছেন বইপ্রেমী। কেউ বলেছেন বইপাগল। শিশুরা বলেছে বইদাদু। যে নামেই ডাকা হোক, মানুষটির জন্মই হয়েছিল যেন জ্ঞানের আলো ছড়াবার জন্য। আজকের দিনে তিনি পৃথিবীতে এসেছিলেন। আজ ১ আগস্ট তাঁর ১০০তম জন্মদিন। ১৯২১ সালের এই দিনে তিনি নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার নূরপুর মালঞ্চী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। প্রথমে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার কয়েকটি গ্রামের মানুষই জানত পলান সরকারের এই অসামান্য শিক্ষা আন্দোলনের গল্প।

মাত্র পাঁচ মাস বয়সে তাঁর বাবা হায়াত উল্লাহ সরকারের মৃত্যুর পর তিনি চতুর্থ শ্রেণীতে পড়া শেষে মা মইফুন নেসার সাথে নানার বাড়ি রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার বাউসা গ্রামে চলে যান । এ দিনটি উপলক্ষে আজ রোববার বিকালে বাউসা গ্রামে পলান সরকার পাঠাগারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে পাঠক সমাবেশ ও স্মরণসভার আয়োজন করা হয়েছে।

পলান সরকারের বাবা-মা তাঁর নাম রেখেছিলেন হারেজ উদ্দিন সরকার। তবে জন্মের পর থেকেই মা “পলান” নামে ডাকতেন। পরে পলান সরকার নামেই পরিচিতি পান। ষষ্ঠ শ্রেণী পর্যন্ত লেখাপড়া করে পলান সরকার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষার ইতি টানেন। কর্মজীবনের শুরুতে পলান সরকার নানা ময়েন উদ্দিন সরকারের জমিদারির খাজনা আদায় করতেন এবং জমিদারি ব্যবস্থা বিলুপ্ত হলে ১৯৬২ সালে বাউসা ইউনিয়নে কর আদায়কারীর চাকরি পান। একসময় তিনি যাত্রাদলে ভাঁড়ের চরিত্রে অভিনয় করতেন এবং যাত্রার পাণ্ডলিপি হাতে লিখে কপি করতেন। অন্যদিকে মঞ্চের পেছন থেকে অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সংলাপ বলে দিতেন। এভাবেই তাঁর বই পড়ার নেশা জাগ্রত হয়।

বাংলাদেশের গ্রামীণ জনপদের অশিক্ষার অন্ধকারের উজ্জ্বল প্রদীপ হয়ে উঠা বইপ্রেমী পলান সরকার নিজের টাকায় বই কিনে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়ে বই পড়ার আন্দোলন গড়ে তুলেছিলেন। ২০০৬ সালের ২৯ ডিসেম্বর বাংলাদেশের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন বিটিভিতে জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ইত্যাদিতে পলান সরকারকে আলোকিত মানুষ হিসেবে তুলে ধরা হয়।

পরবর্তীতে ২০০৭ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের প্রথম সারির দৈনিক প্রথম আলোর ‘ছুটির দিনে’ সাময়িকীতে তাকে নিয়ে প্রচ্ছদ প্রতিবেদন ছাপা হয়, যার নাম ছিলো ‘বিনি পয়সায় বই বিলাই’। এরপর থেকে তিনি সারাদেশে পরিচিতি পান। ২০১১ সালে সামাজসেবায় অবদানের জন্য রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মান একুশে পদক লাভ করেন।

২০১৪ সালের ২০ সেপ্টেম্বর ‘ইমপ্যাক্ট জার্নালিজম ডে’ উপলক্ষে সারা বিশ্বের বিভিন্ন ভাষার দৈনিকে তার উপর প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। তার জীবনের ছায়া অবলম্বনে বিটিভির জন্য গোলাম সারোয়ার দোদুল নির্মাণ করেন ঈদের নাটক ‘অবদান’। বিনামূল্যে বই বিতরণ করে সকলের মধ্যে বই পড়ার আগ্রহ সৃষ্টির করার জন্য ইউনিলিভার বাংলাদেশ পলান সরকারকে ‘সাদা মনের মানুষ’ খেতাবে ভূষিত করে। পলান সরকার ২০১৯ সালের ১ মার্চ রাজশাহী জেলার বাঘা উপজেলার বাউশার নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here