সংবাদ সম্মেলনে ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কার

0
261

আজ (মার্চ ১৩, ২০২১)শনিবার সকাল এগারোটায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির স্টুডিও থিয়েটার হলে ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কার বাস্তবায়ন কমিটির উদ্যোগে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কার বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য নাট্যজন ম. হামিদ, গোলাম কুদ্দুছ, মাসুম রেজা এবং কামাল আহমেদ। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকার বিভিন্ন থিয়েটার দলের নেতৃবৃন্দ।

বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষ থেকে নাট্যজন ম. হামিদ এই পুরস্কারের জুরিবোর্ডসদস্যদের সকলের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন। জুরিবোর্ড সদস্য  প্রফেসর আব্দুল সেলিম (প্রধান), দেবপ্রসাদ দেবনাথ, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, ড. ইউসুফ হাসান অর্ক, ড. কামালউদ্দিন কবির, মোহাম্মদ আলী হায়দার, ড. আইরিন পারভীন লোপা

সংবাদ সম্মেলনের শুরুতেই নাট্যজন ম. হামিদ এই পুরস্কারের নীতিমালা, উদ্দেশ্য ও বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া বিষয়ে কমিটির বক্তব্য উপস্থাপন করেন। ম হামিদ বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের নাট্যচর্চা ভিন্নমাত্রা পেয়েছে।বেগবান হয়েছে গ্রুপ থিয়েটার আন্দোলন। প্রায় ৫০টিরও বেশি নতুন নাটক প্রত্যেক বছর মঞ্চে আসছে। কয়েক হাজার তরুন ছেলে-মেয়ে ও নিবেদিত প্রাণ মানুষ নিজেদের সময়, মেধা ও অর্থ দিয়ে বাংলাদেশের থিয়েটারকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। যৎসামান্য সরকারী আর্থিক অনুদান (বার্ষিক) ছাড়া তেমন কোন উল্লেখযোগ্য স্বীকৃতি নেই এই নিবেদিত প্রাণ থিয়েটার কর্মীদের। অথচ দেশীয় সংস্কৃতির প্রচার ও প্রসারে এই থিয়েটার কর্মীরা নিরলসভাবে শ্রম দিয়ে যাচ্ছেন। অন্যান্য শিল্প মাধ্যমে যেমন, চলচ্চিত্র, সাহিত্য, টিভি নাটকে বিভিন্ন ধরনের সরকারি বে-সরকারি পুরস্কার ও সম্মাননার ব্যবস্থা থাকলেও থিয়েটারের জন্যে নেই কোন জাতীয় পুরস্কার বা সম্মাননার ব্যবস্থা। মঞ্চ নাটকের অভিযাত্রায় যাদের গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে তাদের মধ্যে ইশরাত নিশাত অন্যতম একজন।বাংলাদেশের সংস্কৃতি অঙ্গনের অত্যন্ত পরিচিত ও প্রিয়মুখ, প্রখ্যাত অভিনেত্রী নাজমা আনোয়ারের কন্যা ইশরাত নিশাত প্রয়াত হয়েছেন গত ২০ জানুয়ারি ২০২০ প্রথম প্রহরে। ইশরাত নিশাত এর স্বপ্ন ছিল নতুন ছেলে-মেয়েরা থিয়েটারে আসুক, দক্ষ কর্মী ও অভিনেতা হয়ে গড়ে উঠুক । তার সেই স্বপ্ন আজ আমাদের সকলের স্বপ্ন। আর সেই স্বপ্ন বাস্তনায়নে দেশ নাটকের সহায়তায় ইশরাত নিশাত পুরস্কার বাস্তবায়ন কমিটি ‘ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কার’ প্রবর্তনের উদ্যোগ নিয়েছে। প্রতি বছর তার নামে মঞ্চ নাটকের মোট ৮টি বিভাগে এই নাট্য পুরস্কার দেওয়া হবে। ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কারকে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য করতে দেশের নাট্য ব্যাক্তিত্বদের সম্পৃক্ত করে নাট্য পুরস্কার প্রদানের জন্যে ১৬ সদস্য বিশিষ্ট একটি বাস্তবায়ন কমিটি গঠন করা হয়েছে যার মাধ্যমে পুরস্কার প্রদানের সামগ্রীক কর্মকান্ড পরিচালিত হবে। কমিটির নাম ‘ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কার বাস্তবায়ন কমিটি’। বাস্তবায়ন কমিটির কাঠামো ও সদস্যরা হলেন :  ফেরদৌসী মজুমদার (চেয়ারম্যান),  রামেন্দু মজুমদার,  আতাউর রহমান,  আসাদুজ্জামান নূর,  মামুনুর রশীদ,  ম. হামিদ,  নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু (কো-চেয়ারম্যান), সারা যাকের, লাকী ইনাম, লিয়াকত আলী লাকী (ডিজি, শিল্পকলা একাডেমি), গোলাম কুদ্দুস, তারিক আনাম খান, রোকেয়া রফিক বেবী, কামাল বায়েজীদ (সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান), মাসুম রেজা, কামাল আহমেদ (প্রধান, দেশ নাটক)

বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য নাট্যজন গোলাম কুদ্দুছ বলেন যে, ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কার বাংলাদেশের

থিয়েটার অঙ্গনে একটি প্রথম উদ্যোগ। এর আগে বিভিন্ন থিয়েটার দলের পদক থাকলেও, পুরস্কার এই প্রথম। সুতরাং, চলতি বছরে এই পুরস্কার আয়োজনে বিভিন্ন ঘাটতি, ভুল ভ্রান্তি থেকে যাবে যা কিনা আমরা পরবর্তীতে সম্মিলিতভাবে সংশোধন করে এই পুরস্কারকে উত্তরোত্তর সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবো। প্রথম বছরে শুধুমাত্র ঢাকার পাঁচটি মঞ্চের নাটক এই প্রতিযোগিতার অন্তর্ভূক্ত হবে। উল্লেখ্য যে, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন এর অর্ন্তভুক্ত ও আদর্শে পরিচালিত ঢাকাসহ ঢাকার বাইরের সকল দলই এই পাঁচটি মঞ্চে নাটক প্রদর্শিত করলে এই পুরস্কারের আওতায় পড়বেন। ক্রমান্বয়ে আপনাদের সকলের সহযোগিতায় এই পুরস্কারটিকে থিয়েটারের একটি জাতীয় পুরস্কারে উন্নিত করা হবে।

জুরিবোর্ডের প্রধান জনাব অধ্যাপক আব্দুস সেলিম ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কারের অংশগ্রহণকারী নাটক এর মুল্যায়ন প্রক্রিয়া সম্পর্কে সকলকে অবহিত করেন এবং সম্মেলনে উপস্থিত নানাজনের প্রশ্নের উত্তর দেন।

যে সকল বিভাগে এই পুরস্কার প্রদান করা হবে।

১. শ্রেষ্ঠ অভিনেতা-নারী

২. শ্রেষ্ঠ অভিনেতা-পুরুষ

৩. শ্রেষ্ঠ নির্দেশক

৪. শ্রেষ্ঠ নাট্যকার

৫. শ্রেষ্ঠ মঞ্চসজ্জা

৬. শ্রেষ্ঠ আবহ সঙ্গীত

৭. শ্রেষ্ঠ আলো পরিকল্পক

৮. শ্রেষ্ঠ নাটক

ইশরাত নিশাত নাট্য পুরস্কারের প্রতিটির আর্থিক মূল্যমান হবে ২৫,০০০ (পঁচিশ হাজার) টাকা; তবে শ্রেষ্ঠ

প্রযোজনার আর্থিক মূল্য হবে ৫০,০০০ (পঞ্চাশ হাজার) টাকা। পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত প্রত্যেককে একটি ক্রেস্ট ও একটি সনদ প্রদান করা হবে। ভবিষ্যতে আর্থিক সম্মাননার পরিমাণ বৃদ্ধি করাসহ যে কোনো ধরণের সম্মাননা যুক্ত করা যাবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here