সঞ্জয় দত্তের জেলজীবন এবং মিথ্যা সান্তনা

ভারতীয় চলচ্চিত্রের অন্যতম সমালোচিত অভিনেতা  সঞ্জয় দত্ত ৬২-তে পা দিলেন ।  ভারতের প্রখ্যাত অভিনেতা সুনীল দত্ত ও অভিনেত্রী নার্গিসের ছেলে সঞ্জয়ের জীবন সিনেমার থেকেও বর্ণময়। পেশাগত জীবনের ওঠানামা, নেশাগ্রস্ত জীবন, মুম্বাইয়ে বিস্ফোরণ কাণ্ডে হাজতবাসের কারণে তিনি সবসময় বিতর্কিত হয়েছেন।

২০১৬ সালে ২৫ ফেব্রুয়ারি জেল থেকে ছাড়া পান সঞ্জয়। কিন্তু তার আগে কারাবাসের কথা সন্তানদের জানাতে চাননি । কী কারণে কারাগারে আছেন সেটাও জানাতে চাননি সন্তানদের।

এক সাক্ষাৎকারে সঞ্জয় বলেছিলেন, এটা আমার সৌভাগ্য যে যখন জেলে গিয়েছিলাম, তখন আমার ছেলে এবং মেয়ের বয়স ছিল মাত্র দুই বছর। তাই ওদের সেই সময়টা ভালো করে মনে নেই। আমি আমার স্ত্রীকে বলেছিলাম ওদের জেলে না আনতে। আমি চাইনি ওরা আমাকে কয়েদির পোশাকে দেখুক।

সঞ্জয় আরও বলেছিলেন, একটু বড় হয়ে ওরা যখন বাবার কথা জানতে চায় তখন আমার স্ত্রী ওদেরকে জানিয়েছিল শুটিংয়ের জন্য আমি পাহাড়ে আছি। তখন ওরা ফোনে কথা বলতে চাইলে আমার স্ত্রী বলতো ওখানে নেটওয়ার্ক নেই। ভাগ্য ভালো, মাসে দুইবার তখন আমি জেল থেকে ফোন করতে পারতাম। তখনই কথা হতো সন্তানদের সঙ্গে।

ছেলেমেয়ে বড় হলে তাদের সত্যটা জানিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সঞ্জয়। তিনি বলেন, আমি জীবনে যা করেছি তার জন্য মাঝে মাঝে নিজেকে দোষী মনে হয়। একজন মানুষের কেবল মন থেকে নয়, মস্তিষ্ক থেকেও চিন্তা করা উচিত। আমি যেমন শুধু মনের কথা শুনেছি। মাঝে মাঝে মনে হয়, ছেলে যেন আমার মতো না হয়। আপাতত কাজ নিয়ে ব্যস্ত সঞ্জয়। ‘কেজিএফ: চ্যাপ্টার ২’ ছবিতে দেখা যাবে অভিনেতাকে। সঞ্জয়ের জন্মদিনেই মুক্তি পেয়েছে অভিনেতার নতুন এই ছবিটি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here