২৮ এ পা রাখলেন আমেরিকান গায়িকা আরিয়ানা গ্রান্দে

0
62
Ariana grande Birthday

২৮এ পা রাখলেন যুক্তরাষ্ট্রের বিনোদন তারকা আরিয়ানা গ্রান্দে। অভিনেত্রী হিসেবে আত্মপ্রকাশ, তারপর গায়িকা, দুই ভুবনেই আরিয়ানা সাফল্যের আকাশ ছুঁয়েছেন। তবে তুলনামূলক গান দিয়েই তার অধিক সাফল্য এসেছে।

বিশ্বব্যাপী জনপ্রিয় এই তারকার জন্মদিন আজ। ১৯৯৩ সালের ২৬ জুন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় জন্মগ্রহণ করেন আরিয়ানা গ্রান্দে। ছোট বেলা থেকেই অভিনয়ের প্রতি দারুণ আগ্রহী ছিলেন তিনি। থিয়েটারের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন বহু বছর। পরবর্তীতে গানে আসার পরও তিনি অভিনয়ের প্রতি ভালোবাসা কমিয়ে দেননি তিনি।

আরিয়ানা তার ক্যারিয়ার শুরু করেন ব্রডওয়ে থিয়েটারে মিউজিক্যাল ১৩-এ অভিনয়ের মাধ্যমে। মঞ্চ ও টেলিভিশন ভূমিকায়, এ্যানিমেটেড টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে কন্ঠ দেয়ার কাজও করেছেন তিনি।

সঙ্গীতে আরিয়ানা গ্রান্দের যাত্রা শুরু হয় ২০১২ সালে ‘মিউজিক ফ্রম ভিক্টোরিয়াস’ সাউন্ডট্র্যাকের মাধ্যমে। তিনি রিপাবলিক রেকর্ডসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন এবং ২০১৩-এ তার প্রথম স্টুডিও অ্যালবাম ‘ইউরস ট্রুলি’ প্রকাশ করেন। যেটি যুক্তরাষ্ট্রের বিলবোর্ড ২০০-এর তালিকায় প্রথম হয়। অ্যালবামটির একক সঙ্গীত, ‘দ্য ওয়ে’ বিলবোর্ড হট ১০০-এর তালিকায় সেরা দশে অবস্থান করে। সমালোচকরা আরিয়ানার বিস্তৃত কন্ঠ পরিসরকে মারিয়া ক্যারির সঙ্গে তুলনা করে থাকেন।

গ্রান্দের দ্বিতীয় স্টুডিও অ্যালবাম ‘মাই এ্যাভরিথিং’ প্রকাশ হয় ২০১৪ সালে। এটিও যুক্তরাষ্ট্রের তালিকায় প্রথম স্থানে আত্নপ্রকাশ করে এবং অন্যান্য ২৪টি দেশে এটি সেরা দশে অবস্থান করে। অ্যালবামটির একটি একক গান ‘প্রবলেম’ এবং অ্যালবামটির আরো কিছু গানের মাধ্যমে তিনি ৩৪ সপ্তাহ ধরে ধারাবাহিকভাবে ছিলেন বিলবোর্ড হট ১০০-এর সেরা দশে এবং ২০১৪-এ কোনো শিল্পীর সেরা দশে অবস্থান করা একক গানের সংখ্যার দিক থেকে তিনি শীর্ষস্থানে ছিলেন।

২০১৬ সালে আরিয়ানা গ্রান্দে তার তৃতীয় স্টুডিও অ্যালবাম প্রকাশ করেন। অ্যালবামটির ‘ডেনজারাস উইম্যান’ শিরোনামের একক গানটি বিলবোর্ড হট ১০০ তালিকায় দশম স্থানে অবস্থান করে। যা গ্রান্দেকে তৈরি করে ইতিহাসে প্রথম ব্যক্তি যার কিনা প্রথম তিনটি অ্যালবামেরই একক গান তালিকার শীর্ষ দশে অবস্থান করে।

আরিয়ানা গ্রান্দে এই পর্যন্ত তিনটি আমেরিকান মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস, একটি এমটিভি ভিডিও মিউজিক অ্যাওয়ার্ড, তিনটি এমটিভি ইউরোপ মিউজিক অ্যাওয়ার্ড এবং চারটি গ্রামি অ্যাওয়ার্ড মনোনয়ন পেয়েছেন। তার মোট তিনটি অ্যালবামই আরআইএএ কতৃর্ক প্লাটিনাম হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। ২০১৬ সালে টাইম ম্যাগাজিনের বিশ্বের ১০০ সর্বোচ্চ প্রভাবশালী ব্যক্তির তালিকায় স্থান করে নেন আরিয়ানা।

দাতা হিসেবেও তিনি আলোচিত। দাতব্য কর্মকাণ্ডের জন্য তিনি অনেক প্রশংসিত হয়েছেন। এছাড়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে তার অনুসারীর সংখ্যা ২৪৬ মিলিয়ন! যা ইনস্টাগ্রামে তৃতীয় সর্বোচ্চ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here